ads

আপিল বিভাগের সঙ্গে বসবেন আইনমন্ত্রী, সিনহার দায়িত্ব নেয়া সুদূরপরাহত

সিনহা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সংবাদ২৪.নেট, ঢাকা: বাংলাদেশের নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা ও আচরণ বিধিমালার গেজেট প্রকাশ নিয়ে জটিলতা নিরসনে বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগের বিচারকদের সঙ্গে বসবেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

 

 

দীর্ঘদিন ঝুলে থাকা ওই গেজেট নিয়ে রোববার আপিল বিভাগের শুনানিতে এ নিয়ে আলোচনার পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বাইরে এসে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

 

 

তিনি বলেন, “এ মামলায় আমরা আবার চার সপ্তাহ সময় নিয়েছি। আমি আদালতকে জানিয়েছি, জিনিসটা কীভাবে সুরাহা করা যায় তা নিয়ে আদালতের সাথে মাননীয় আইনমন্ত্রী বসতে চান।”

 

 

বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধি নিয়ে বিচার বিভাগের সঙ্গে রাষ্ট্রের নির্বাহী বিভাগের দীর্ঘ টানাপড়েনের পর আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ওই বিধিমালার খসড়া সুপ্রিম কোর্টে জমা দিলেও প্রধান বিচারপতি গত ৩০ জুলাই তা গ্রহণ না করে কয়েকটি শব্দ ও বিধি নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

 

 

এরই মধ্যে ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় দিয়ে ক্ষমতাসীনদের সমালোচনার মুখে পড়েন প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা। এ অবস্থায় প্রধান বিচারপতি গত ৩ অক্টোবর থেকে ছুটিতে যান। তিনি দায়িত্বে না ফেরা পর্যন্ত আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞাকে প্রধান বিচারপতির কার্যভার দেওয়া হয়।

 

 

এরপর ১৮ অক্টোবর এক সংবাদ সম্মেলনে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে যেসব দুর্নীতির অভিযোগ এসেছে, দুদকের মাধ্যমে তার অনুসন্ধান হবে।

 

 

প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা ছুটিতে যাওয়ার পর বিচারকদের চাকরিবিধির এ বিষয়টি গত ৮ অক্টোবর আপিল বিভাগে উঠলে সে সময় ৫ নভেম্বর পর্যন্ত সময় বাড়ানো হয়।

 

 

সে অনুযায়ী বিষয়টি রোববার আদালতে ওঠে এবং অ্যাটর্নি জেনারেল আবারও সময়ের আবেদন করেন।

 

 

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আজ অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা ফিরে এসে দায়িত্ব নেয়া সুদূরপরাহত ও অসম্ভব। কারণ, অন্যান্য বিচারপতিরা যদি তার সঙ্গে বসতে না চান তাহলে তিনি একা একা বসে কীভাবে বিচার করবেন?

 

 

ওদিকে, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আজ রোববার সকালে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য বলেছেন, আইনমন্ত্রী বিচার বিভাগ নিয়ে নানা সময়ে নানা মন্তব্য করছেন। উচ্চ আদালত কীভাবে চলবে সেটাও যেন তিনিই ঠিক করছেন। এসব দেখে মনে হয়, যেন তিনি প্রধান বিচারপতি।

 

 

আগামী ১০ নভেম্বর প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা ছুটি শেষ হলেও তিনি কাজে যোগ দিতে পারবেন কি-না সেটা নিয়ে আইনমন্ত্রীর বক্তব্যেরও সমালোচনা করেছেন রিজভী।

Facebook Comments

এ সংক্রান্ত আরো খবর




সম্পাদক: আরিফা রহমান

২৮/এফ ট্রয়োনবী সার্কুলার রোড, ৫ম তলা, মতিঝিল, ঢাকা।
সর্বক্ষণিক যোগাযোগ: ০১৭১১-০২৪২৩৩
ই-মেইল ॥ sangbad24.net@gmail.com
© 2016 allrights reserved to Sangbad24.Net | Desing & Development BY Popular-IT.Com, Server Manneged BY PopularServer.Com