ads

শিক্ষকের হাতে প্রধান শিক্ষিকার কামড়!

নওগাঁ

নওগাঁ প্রতিনিধি, সংবাদ২৪.নেট : নওগাঁর রাণীনগরে চকমনু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকাকে স্থানীয় জনতার রোষানল থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। স্কুল চলাকালে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সহকারি শিক্ষকের সাথে বাকবিতাণ্ডা, ধস্তা-ধস্তির একপর্যায়ে প্রধান শিক্ষিকা তার হাতে কামড় দিলে আত্মরক্ষার জন্য তিনি চিৎকার দিতে থাকেন। শিক্ষকের সাথে ন্যাক্কারজনক আচরণ করার বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সদস্যসহ গ্রামবাসি উপযুক্ত ব্যবস্থার দাবিতে প্রায় ৩ ঘন্টা ধরে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে।

 

 

বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানালে পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশের সহযোগীতায় শিক্ষা অফিসের একাধিক কর্মকর্তা এই প্রধান শিক্ষিকার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করা হবে এমন আশ্বাস দেয়ায় পরিস্থিতি শান্ত হয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে একটি তদন্ত কমিটি গঠনসহ ওই শিক্ষিকাকে তিন দিনের নৈমত্তিক ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত রিপোর্টটি হাতে পেলেই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তক্রমে তার বিরুদ্ধে উপযুক্ত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার জানান।

 

 

জানা গেছে, উপজেলার কাশিমপুর ইউপি’র চকমনু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২০১৫ সালে প্রধান শিক্ষিকা হিসেবে যোগদান করেন স্বপ্না রানী সাহা। তখন থেকেই তার সহকর্মীদের সাথে ছোট-খাট নানা বিষয় নিয়ে দ্বন্দ্বে জড়াতেন। বিষয়গুলো নিয়ে পর্যায়ক্রমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানো হলে ওই প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে রহস্যজনক কারণে শক্ত কোনো বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় দিন দিন তিনি আরো বেপরোয়া হয়ে পড়েন।

 

 

গত ২৪ এপ্রিল স্কুল চলাকালে ছাত্র-ছাত্রীদের পুরাতন অমূল্য সংরক্ষিত পাঠ্যপুস্তক ম্যানেজিং কমিটি ও সহকারি শিক্ষকদের না জানিয়ে গোপনে বিক্রয় করেছে এমন অভিযোগে অন্যান্য শিক্ষকের সাথে তার ঝগড়া হলে স্বপ্না রাণী সাহা বাইরে থেকে বেশ কয়েকজন মাস্তান নিয়ে এসে তার সহকর্মীদেরকে সরাসরি হুমকি প্রদান করেন বলে কথিত রয়েছে।

 

 

ঘটনাটি স্থানীয় শিক্ষা অফিস এবং থানা পর্যন্ত গড়ালেও তার বিরুদ্ধে দৃশ্যমান কোনো ব্যবস্থা না হওয়ায় বীরদর্পে সহকর্মীদের উপর নানা কায়দায় নির্যাতন ও হয়রানি করে যাচ্ছে স্বপ্না রানী সাহা। অভিযোগের ভিত্তিতে বিভাগীয় তদন্ত সম্পূর্ণ হলেও দায়িদের বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। তার অপকর্মের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুললেই নেমে আসে হয়রানির খড়গ। ওই স্কুলের চারজন সহকারি শিক্ষকসহ ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিও তার হয়রানি ও নির্যাতন থেকে রেহাই পায়নি। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে আত্রাই উপজেলার সাহেবগঞ্জ মহল্লার বাসিন্দা হিসেবে ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে ২০১০ সালে নারী কোঠায় চাকরি নেয়ার ঘটনা বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক ও আঞ্চলিক দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত হয় যা বিভাগীয় তদন্ত চলমান রয়েছে।

 

 

এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার দুপুরে স্কুলে হিসাব-নিকাশ চলাকালে স্বপ্না রানীর হাতে লিখিত পুরাতন বই বিক্রয়ের রেজিষ্টার খাতা সহকারি শিক্ষক জেকের আলীর নজরে পড়ে। তাৎক্ষণিকভাবে বই বিক্রয়ের প্রতিবাদ করলে জেকের আলীর সাথে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে অন্যান্য শিক্ষকের উপস্থিতিতে ওই রেজিষ্টারের হিসাবের পাতাটি প্রধান শিক্ষিকা ছিঁড়ে তার হেফাযতে নেওয়ার চেষ্টা করলে তার সহকর্মীরা বাধা দেয়। ধস্তা-ধস্তির এক পর্যায়ে শিক্ষক জেকের আলীর হাতে স্বপ্না রাণী কামড় দিলে তার চিৎকারে গ্রামবাসি স্কুলে এসে ন্যাক্কারজনক ঘটনার বিবরণ জেনে তার কঠোর শাস্তির দাবিতে ওই প্রধান শিক্ষিকাকে তিন ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ ও সহকারি শিক্ষা অফিসাররা গিয়ে স্বপ্না রানীকে উদ্ধার করে।

 

 

চকমনু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা স্বপ্না রাণী সাহা জানান, আমি বর্তমানে অসুস্থ, এখন কথা বলতে পারবো না বলে এরিয়ে যান।

 

 

উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার ওহেদুল্লাহ জানান, চকমনু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সংরক্ষিত কিছু পুরাতন বই প্রধান শিক্ষিকা স্বপ্না রানী সাহা গোপনে বিক্রয় করেন। এমন অভিযোগ নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরেই শিক্ষকদের মাঝে মনোমালিন্য চলছিল। বুধবার দুপুরে স্কুলের হিসাব-নিকাশ চলাকালীন সময়ে সহকারি শিক্ষক জেকের আলী একটি রেজিষ্টারে প্রধান শিক্ষিকার হাতে লেখা বই বিক্রয়ের হিসাব দেখতে পেয়ে স্বপ্না রাণী সাহার সাথে কথা কাটাকাটি ও ধস্তা-ধস্তির একপর্যায়ে পাতাটি ছিঁড়ে ফেলার চেষ্টা করলে জেকের আলী বাধা দেন। তখন প্রধান শিক্ষিকা রাগান্বিত হয়ে তার হাতে শক্ত করে কামড় দেন। তার চিৎকারে গ্রামবাসিরা এসে প্রধান শিক্ষিকাকে তিন ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে। খবর পেয়ে আমি রাণীনগর থানাপুলিশের সহযোগীতায় তাকে উদ্ধার করি।

Facebook Comments

এ সংক্রান্ত আরো খবর




সম্পাদক: আরিফা রহমান

২৮/এফ ট্রয়োনবী সার্কুলার রোড, ৫ম তলা, মতিঝিল, ঢাকা।
সর্বক্ষণিক যোগাযোগ: ০১৭১১-০২৪২৩৩
ই-মেইল ॥ sangbad24.net@gmail.com
© 2016 allrights reserved to Sangbad24.Net | Desing & Development BY Popular-IT.Com, Server Manneged BY PopularServer.Com