ads

বাসচালককে মারধর, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র বহিষ্কার

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়

সংবাদ২৪.নেট ডেস্ক:

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বাসচালক ও তাঁর সহকারীকে মারধরের ঘটনায় এক ছাত্রকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের এক নেতা ও এক কর্মীকে কারণ দর্শানো নোটিশ এবং বহিরাগত একজনের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কার্যালয়ে এ বিষয়ে ছাত্র শৃঙ্খলা কমিটির এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক রাশিদ আসকারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় উপস্থিত ছিলেন ছাত্র শৃঙ্খলা কমিটির সদস্যসচিব ও প্রক্টর অধ্যাপক মাহবুবর রহমান, ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক আনোয়ারুল হক, পরিবহন প্রশাসক অধ্যাপক আনোয়ার হোসেনসহ কমিটির অন্য সদস্যরা।

সভায় সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাড়া করা বাসের চালক মো. মিলন ও তাঁর সহকারী রনিকে মারধরের অভিযোগে হিসাববিজ্ঞান বিভাগের স্নাতকোত্তর শ্রেণির ছাত্র কামরুজ্জামান তরঙ্গকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয় এবং কেন তাঁকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে না, এ মর্মে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের পরিবেশবিষয়ক উপসম্পাদক ও আরবি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র যোবায়ের হোসেন এবং ছাত্রলীগ কর্মী ও ইতিহাস বিভাগের ছাত্র তৌফিকুর রহমানের বিরুদ্ধে কেন আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে না—সে মর্মে কারণ দর্শানো নোটিশ দেওয়া হয়। এ ছাড়া মারধরের ঘটনার সঙ্গে জড়িত বহিরাগত মোহাইমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় থানায় জিডি করা হয়েছে।

ঘটনার অধিকতর তদন্তের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন অধ্যাপক কাজী আখতার হোসেনকে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এ কমিটিকে সত্বর তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শৃঙ্খলা কমিটির সদস্যসচিব ও প্রক্টর অধ্যাপক মাহবুবর রহমান প্রথম আলোকে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘অভিযুক্ত ব্যক্তিদের ব্যাপারে ক্যাম্পাসে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকা এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগ রয়েছে। এই প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সুস্পষ্ট অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সর্বসম্মতিক্রমে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। ভবিষ্যতে কেউ কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধেও যথাযথ ব্যবস্থা নিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বদ্ধপরিকর।’

উল্লেখ্য, গত রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাড়া করা বাসের চালক মিলন ও তাঁর সহকারী রনিকে মারধর করেন কামরুজ্জামান ও তাঁর সহযোগীরা। এ ঘটনায় গতকাল সোমবার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কুষ্টিয়ায় যাতায়াতকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাড়া করা বাস চলাচল বন্ধ রাখে কুষ্টিয়ার পরিবহন মালিক সমিতি ও শ্রমিক ইউনিয়ন। পরে তারা দোষী ব্যক্তিদের বিচার ও শাস্তির দাবিতে ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়।

Facebook Comments

এ সংক্রান্ত আরো খবর




সম্পাদক: আরিফা রহমান

২৮/এফ ট্রয়োনবী সার্কুলার রোড, ৫ম তলা, মতিঝিল, ঢাকা।
সর্বক্ষণিক যোগাযোগ: ০১৭১১-০২৪২৩৩
ই-মেইল ॥ sangbad24.net@gmail.com
© 2016 allrights reserved to Sangbad24.Net | Desing & Development BY Popular-IT.Com, Server Manneged BY PopularServer.Com